জীবনের স্রষ্টা

SOAP পাষ্টর লিওনের পক্ষ থেকে

বাইবেল পদ, পযার্লোচনা, আবেদন, প্রাথর্না

২৮.০১.১৩; যাত্রাপুস্তক ১৭-২০; প্রেরিত ৩

 

বাইবেল পদ: প্রেরিত ৩:১৪আপনারা সেই পবিত্র ও ন্যায়বান লোকটিকে অস্বীকার করে একজন খুনিকে আপনাদের কাছে ছেড়ে দিতে বলেছিলেন। ১৫যিনি জীবনদাতা তাঁকেই আপনারা মেরে ফেলেছিলেন, কিন্তু ঈশ্বর তাঁকে মৃত্যু থেকে জীবিত করে তুলেছেন; আর আমরা তার সাক্ষী। ১৯এইজন্য আপনারা পাপ থেকে মন ফিরিয়ে ঈশ্বরের দিকে ফিরুন যেন আপনাদের পাপ মুছে ফেলা হয়।

 

পযার্লোচনা: লূক, প্রেরিত বইয়ের লেখক এখানে লিপিবদ্ধ করছেন পিতরের ধর্মোপদেশ। পিতর দাবি করছেন যে, যীশু “পবিত্র ও ন্যায়বান একজন” এবং “জীবনের স্রষ্টা।” এটা বাপ্তিস্মদাতা যোহন (যোহন ১:৯-১৪) এবং পৌলের (কলসীয় ১:১৫-২০) সাথে একমত। যীশুই “জীবনের স্রষ্টা।” সম্পূর্ণ্ বিশ্বাসে তিঁনি নিজেকে মৃত্যুর হাতে সমর্প্.ন করেছিলেন যে মৃত্যুর সমাপ্তি হয়নি। তিনি তার অনুসরণকারীদের নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন যে, ক্রুশবিদ্ধ হয়ে মরার পরে তিনি আবার জীবনে ফিরে আসবেন।

 

আবেদন: আমার আছে সেই একই নিশ্চয়তা। জীবনের স্রষ্টা পথটি আলোকিত করেছেন মৃত্যুর দরজার মধ্য দিয়ে। এখানে পৃথিবীতে একটি শরীরের মধ্য থেকে আমার অস্তিত্বের সমাপ্তি হচ্ছে মৃত্যু, কিন্তু এটা আমার অস্তিত্বের সমাপ্তি না। প্রস্তুতিতে, আমি অবশ্যই অনুতপ্ত হয়, তার ক্ষমা পায় এবং তাকে বানাই আমার জীবনের প্রভু।

 

প্রাথর্না: প্রভু, তুমিই “জীবনের স্রষ্টা,” এবং “সমস্ত জিনিষের স্রষ্টা।” তুমি জান এই জাগতিক জীবন কেননা তুমি শুধুমাত্র এটা সৃষ্টি করনি, তুমি এখানে বাসও করেছ ! আমি তোমার ক্ষমা এবং তোমার পরিচালনার উপর আমি নির্ভ্.র করি। আমেন।

 

পাষ্টর লিওন

বন্ধুদের প্রস্তুত করতে সময় এবং অনন্তকালের জন্য !

 

2.Muslim version

জীবনের স্রষ্টা

SOAP পাষ্টর লিওনের পক্ষ থেকে

কিতাবুল মোকাদ্দস , পযার্লোচনা, আবেদন, মুনাজাত

২৮.০১.১৩; হিজরত ১৭-২০; প্রেরিত ৩

 

কিতাবুল মোকাদ্দস: প্রেরিত ৩:১৪আপনারা সেই পবিত্র ও ন্যায়বান লোকটিকে অস্বীকার করে একজন খুনিকে আপনাদের কাছে ছেড়ে দিতে বলেছিলেন। ১৫যিনি জীবনদাতা তাঁকেই আপনারা মেরে ফেলেছিলেন, কিন্তু আল্লাহ্ তাঁকে মৃত্যু থেকে জীবিত করে তুলেছেন; আর আমরা তার সাক্ষী। ১৯এইজন্য আপনারা গুনাহ্ থেকে মন ফিরিয়ে আল্লাহর দিকে ফিরুন যেন আপনাদের গুনাহ্ মুছে ফেলা হয়।

 

পযার্লোচনা: লূক, প্রেরিত বইয়ের লেখক এখানে লিপিবদ্ধ করছেন পিতরের ধর্মোপদেশ। পিতর দাবি করছেন যে, ঈসা “পবিত্র ও ন্যায়বান একজন” এবং “জীবনের স্রষ্টা।” এটা ইউহোন্না (ইউহোন্না ১:৯-১৪) এবং পৌলের (কলসীয় ১:১৫-২০) সাথে একমত। ঈসাই “জীবনের স্রষ্টা।” সম্পূর্ণ্ বিশ্বাসে তিঁনি নিজেকে মৃত্যুর হাতে সমর্প্.ন করেছিলেন যে মৃত্যুর সমাপ্তি হয়নি। তিনি তার অনুসরণকারীদের নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন যে, ক্রুশবিদ্ধ হয়ে মরার পরে তিনি আবার জীবনে ফিরে আসবেন।

 

আবেদন: আমার আছে সেই একই নিশ্চয়তা। জীবনের স্রষ্টা পথটি আলোকিত করেছেন মৃত্যুর দরজার মধ্য দিয়ে। এখানে দুনিয়াতে একটি শরীরের মধ্য থেকে আমার অস্তিত্বের সমাপ্তি হচ্ছে মৃত্যু, কিন্তু এটা আমার অস্তিত্বের সমাপ্তি না। প্রস্তুতিতে, আমি অবশ্যই অনুতপ্ত হয়, তার ক্ষমা পায় এবং তাকে বানাই আমার জীবনের মাবুদ।

 

মুনাজাত: মাবুদ, তুমিই “জীবনের স্রষ্টা,” এবং “সমস্ত জিনিষের স্রষ্টা।” তুমি জান এই জাগতিক জীবন কেননা তুমি শুধুমাত্র এটা সৃষ্টি করনি, তুমি এখানে বাসও করেছ ! আমি তোমার ক্ষমা এবং তোমার পরিচালনার উপর আমি নির্ভ্.র করি। আমেন।

 

পাষ্টর লিওন

বন্ধুদের প্রস্তুত করতে সময় এবং অনন্তকালের জন্য !

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s